প্রকল্প কর্মকর্তার খাটের নিচে ২ কোটি টাকা..! দুদক অবাক..!!



রকারি কোয়ার্টারে দুদক তল্লাশি চালিয়ে প্রায় দুই কোটি টাকাসহ দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) তাজুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছেন।
বৃহস্পতিবার (০৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যার দিকে দিনাজপুর দুদকের উপপরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমানের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি দল এ অভিযান চালায় এমন খোজ পায়

তারা আরো জানায় বৃহস্পতিবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে উপজেলা পিআইও অফিসে এসেই হাজির হয় দুদক  সাত সদস্যের একটি দল। এ সময়েই কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম নিজ কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। কার্যালয় থেকে অনেক কিছু টাকা উদ্ধার করে তারপরে কোয়ার্টারেই তল্লাশি শুরু করেন বর্তমান দুদকের উপসহকারী পরিচালক জিন্নাতুল ইসলাম ও সহকারী পরিচালক ওবায়দুর রহমান।

দুদক সদস্যরা সেখানেই একে একে করে চারটি ট্রাভেল ব্যাগের মধ্যে টাকার সন্ধান পান। রাত পৌনে ৭টার দিকে পার্বতীপুর অগ্রণী ব্যাংক থেকে মেশিন এনে টাকা গণনা করা হয়। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (এনডিসি) দবির উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নী ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু তাহের মো. শামসুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

দিনাজপুর দুদকের উপপরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান বলেন, গোপন সূত্রের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালিত হয়। কিন্তু একজন প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার বাসায় এক কোটি ৮০ লাখ টাকা দেখে অবাক হয়েছি। ঘরের ভেতর খাটের নিচে চারটি ব্যাগে সাজানো ছিল টাকাগুলো। এতো টাকা নিয়ে একাই বাসায় থাকতেন ওই কর্মকর্তা। তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

পার্বতীপুরের একজন চেয়ারম্যান নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, উপজেলার টিআর, কাবিখা, সোলার ক্রয়, গৃহনির্মাণসহ বিভিন্ন প্রকল্প থেকে লাখ লাখ টাকা উৎকোচ গ্রহণ করতেন তাজুল। ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি পার্বতীপুর উপজেলায় তিনি যোগ দেন । এর আগেও তিনি ফুলবাড়ী উপজেলায় কর্মরত ছিলেন এবং তার বাড়ি কুড়িগ্রাম সদরের নাজিরা খলিলগঞ্জ গ্রামে।

এরপরে বর্তমান পার্বতীপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নী জানান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম দুদকের হাতে টাকাসহ গ্রেফতার হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

Post a Comment

0 Comments