যে ৫ টি উপায়ে আপনি অন্যের ফেসবুক আইডি ১০০% হ্যাক করে নিতে পারেন!

facebook hack,hack facebook account,facebook,hack facebook,facebook hack bangla,how to hack facebook password,facebook id hack,facebook hack 2019,how to hack facebook,facebook id hack bangla,how to hack facebook account,facebook id hack bangla tutorial,facebook hacker,hack facebook account 2020,hack friend facebook account,how to hack facebook accounts,hack facebook account in one click,facebook hacking,

হ্যাকিং  এই শব্দটির সাথে আমরা সবাই মোটামুটি ভাবে পরিচিত। আর এই হ্যাকিং নিয়ে আমাদের আগ্রহের কোন কমতি নেই! কী ভাবে হ্যাকারা হ্যাক করে? আমি কী ভাবে একজন হ্যকার হব? হ্যকিং কী ভালো না খারাপ ইত্যাদি  আমরা সবাই কমবেশি ইনট্রেস্টেড?


ফেসবুক আইডি হ্যাকিং এর কথা উঠলে আমরা আরো বেশী ইনট্রেস্টেড হয়ে যাই। আর, আজকের এই টিউনে এ আমি আপনাদেরকে দেখবো যে কীভাবে খুব সহজে ৫ টি পদ্বতি ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি হ্যাক করবে। আগেই বলে রাখি এই টিউনটি Beginner Hacker দের জন্য যারা হ্যাকিং শিখতে চায় বা হ্যাকির করার কৌশল সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে চায়। আর এই পদ্বতি গুলোন খুব কমন পদ্বতি!! বর্তমানে এই সব পদ্বতি খুব কম ব্যবহার করা হয়। কেননা যুগে যুগে প্রযুক্তির যত উন্নতি হচ্ছে সাধারণ মনুষ যত সচেতন হচ্ছে হ্যাকারদের হ্যাকিং করার পদ্বতি আরো ভিন্নতর হচ্ছে। তো শুরু করা যাক ফেসবুক আইডি হ্যাক করার জন্য ৫টি সহজ ও শতভাগ কার্যকর পদ্বতি-

Phishing সাইটের মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করাঃ
একসময় এটি ছিল ফেসবুক আইডি হ্যাক করার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি অস্ত্র। কিন্তু সবাই এখন সচেতন তাই এই Phishing সাইটের মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করা অনেক কস্টকর। আর ফেসবুক ফিশিং সাইট হলো এমন এক ধরণের সাইট যেটি দেখতে হুবহু ফেসবুকের মতোন। কোন ভিক্টিম যদি কোন ভাবে ওই ফিশিং সাইটে লগিন করে তবে তার ফেসবুক আইডির Email এবং Password হ্যাকারে কাছে চলে যাবে!! এর ফলে ওই আইডিটি হ্যাকিং এর শিকার হবে। ফিশিং সাইটের Url দেখে ফিশিং সাইট বোঝা যায় তাই ভিক্টিম এই পদ্বতি থেকে রক্ষা পায় কিন্তু হ্যাকাররা এই পদ্বতিকেই ব্যবহার করে তৈরি করে এই ফেসবুক ফিশিং এন্ড্রয়েড এপ এর এটিকে তারা ফ্রি ফেসবুক ইত্যাদি নামে চালিয়ে দেয় আর এই App টিতে কেউ লগিন করে তবে তার আইডি সেম পদ্বতি হ্যাক হয়ে যায়।

  এই পদ্বতি ব্যবহার করে আপনিও ভিক্টিমের আইডি হ্যাক করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে মাথা খাটাতে হবে হবে!! ফিশিং পদ্বতিকে একটু মোডিফাইক করেও কিন্তু আইডি হ্যাক করা সম্ভব হয়।

Forget Passwordএর মধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করাঃ

আপনি যদি ভিক্টিমের ফোনে কোন স্পাই এপ ইন্সটাল করিয়ে দিতে পারেন তবে অনায়াসে তার আইডি হ্যাক করেতে পারেন!!  স্পাই এপ কোন পদ্বতিতে ভিক্টিমে ফোনে ইন্সটাল করাবেন সেটা আপনাকে বের করতে হবে!! স্পাই এপ ইন্সটাল করাতে পারলে শুধু তার ফেসবুক আইডি নয় তার ফোনের সব ডাটা আপনি চুরি করে নিতে পারবেন!! এটা খুব একটা কঠিন কাজ নয়। যদি কয়েক বাইটের একটা ম্যালাওয়ে বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির কারণ হয়ে থাকে তবে এটি আর কী এমন কঠিন কাজ। Idea: কোন গেম বা টুলস এপ যেমনঃ ফাইল ম্যানেজার এপ ভিক্টিমের ফোনে ইন্সটাল করিয়ে দিন (কীভাবে দিবেন সেটা আপনার ব্যপার) যেটির কাজ হবে ফোনের সব এস-এম-এস আপনার কাছে ফরওয়ার্ড করা। ব্যস ! ফেসবুকে আইডির পাশপাশি তার যাবতিয় সব Account আপনি হ্যাক করতে পারবেন।

Recovery এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করাঃ
এটি অনেক সময় সাপেক্ষ। তবে এই পদ্বতি ব্যবহার করে আপনি সফল নাও হতে পারেন। Recovery এর মাধম্যে আইডি হ্যাক করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ভিক্টিমের ফেসবুকে দেওয়া জন্ম তারিখ, মাস এবং সাল জানতে হবে। আর আর একটি ছবিও আপনার লাগবে। এরপর তার নামে একটি ফেক NiD card বা School Id card বানিয়ে ফেসবুকের কাছে এমন ভাবে এপ্লাই করতে হবে যাতে করে তারা মনে আপনিই সেই আইডির মালিক!! সবকিছু ঠিক-ঠাক থাকলে আপনার দেওয়া ইমেলে একটা লিংক চলে আসবে যার মাধ্যমে আপনি ভিক্টিমের আইডির এক্সেস নিতে পারবেন ।

One Time Password এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করাঃ
আপনি যদি ভিক্টিমের ফোনের এক্সেস পেয়ে যান তাহলে OTP এর মাধ্যমে তার আইডি হ্যাক করতে পারেন। তবে এটি বাংলাদেশী কোনো নাম্বারে কাজ করবে না। তাই আর বিস্তারিত কিছু বললাম না। এই লিংকে → One-Time Password Numbers গিয়ে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন।

Brute-force Attack এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাকঃ
Brute-force কে Dictionary attack অ বলা হয়। কেননা এই কোন আইডি হ্যকের সময় এটি Dictionary তে থাকা পাসওয়ার্ড এর সাথে মেলাতে থাকে!! যদি Dictionary তে থাকা পাসওয়ার্ড এর সাথে মিলে যায় তাহলে আইডি হ্যাক হয়ে যাবে। সহজ পাসওয়ার্ডগুলোন খুব তাড়াতাড়ি পওয়া যায়।

যদি ভিক্টিম কোন স্ট্রং বা ইউনিক পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে থাকে তাহলে সেই পাসওয়ার্ড ক্রাক করতে কয়েক বছর অ লেগে যেতে পারে। এই সময় সাপেক্ষ করণে Brute-force কম ব্যবহার হয়। কিন্তু, আগে বেশিরভাগ ইউজার খুব সহজ পাসওয়ার্ড যেমনঃ শুধু নাম্বারিক পাসওয়ার্ড (123456, 654321, 112233 ইত্যাদি..) বা লেটারিক (asdfghjk, qwertyuiop, zxcvbnm, abcdef ইত্যাদি..) ব্যবহার করত। তাই হ্যাকার Brute-force এর মাধম্যে খুব সহজেই আইডি হ্যাক করে ফেলত। আপনি এই পদ্বতি চেস্টা করে দেখতে পারেন। সফল অ তো হতে পারেন।

আশা রাখি এই ট্রিকগুলোন আপনার কাজে দিবে। আর একজন দক্ষ হ্যাকার হতে গেলে আপনাকে অনেক অধ্যবসায় করতে হবে । পরিশ্রম করতে হবে, তাছাড়াও আইসিটি বিষয়ে আরো ভালো জানে হবে। শিখতে হবে হায়ার লেভেল এর প্রোগ্রামিং। তাহলে আপনি হতে পারবেন একজন দক্ষ হ্যাকার।
আজ এই পর্যন্তই। ভালো থাকুন শুস্থ থাকুন আমাদের সাথেই থাকুন। পোস্টটি কেমন লাগল তা জানাতে কমেন্ট করুন।

Post a Comment

0 Comments